খেলাধুলা

বিশ্বকাপ দলের কেউ নেই নিউ জিল্যান্ডের বাংলাদেশ সফরে

বিশ্বকাপের প্রস্তুতির জন্য সিরিজ, অথচ সেই দলে নেই নিউ জিল্যান্ডের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ স্কোয়াডের কেউ! নিয়মিত খেলোয়াড়দের বাদ দিয়ে বাংলাদেশ সফর করবে নিউ জিল্যান্ড।

সোমবার টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ ও ভারত সিরিজের দল এবং বাংলাদেশ ও পাকিস্তান সফরের দল ঘোষণা করেছে নিউ জিল্যান্ড। বাংলাদেশের বিপক্ষে পাঁচ ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজে নেই কেন উইলিয়ামসন, মার্টিন গাপটিল, ট্রেন্ট বোল্টদের কেউ।

বাংলাদেশ সফর দিয়ে শুরু হয়ে ভারত সফর দিয়ে শেষ হবে নিউ জিল্যান্ডের চার মাসের লম্বা সফর। নিউ জিল্যান্ড ক্রিকেট জানিয়েছে, জৈব-সুরক্ষা বলয়ে ক্রিকেটারদের মানসিক স্বাস্থ্যের কথা মাথায় রেখেই দুই ভাগে দল দেওয়া হয়েছে।

উইলিয়ামসনের অনুপস্থিতিতে বিশ্বকাপের আগের দুই সিরিজের জন্য অধিনায়ক করা হয়েছে টম ল্যাথামকে।

বাংলাদেশ সফরের দলে রাখা হয়েছে অভিষেকের অপেক্ষায় থাকা দুই স্পিনিং অলরাউন্ডার কোল ম্যাকাঞ্জি, রাচিন রবীন্দ্র ও পেসার বেন সিয়ার্সকে। দলে আছেন কলিন ডি গ্র্যান্ডহোম, হেনরি নিকোলস, টম ব্লান্ডেলের মতো অভিজ্ঞরাও।

আগামী ২৪ অগাস্ট বাংলাদেশে পৌঁছাবে নিউ জিল্যান্ড। দুই দলের পাঁচ ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ শুরু ১ সেপ্টেম্বর থেকে। পরের চার ম্যাচ ৩ সেপ্টেম্বর, ৫ সেপ্টেম্বর, ৮ সেপ্টেম্বর ও ১০ সেপ্টেম্বর। সবগুলো ম্যাচই দিন-রাতের, হবে মিরপুর শের-ই-বাংলা ক্রিকেট স্টেডিয়ামে।

সেপ্টেম্বরের শেষ দিকে সংযুক্ত আরব আমিরাতে হবে স্থগিত হওয়া আইপিএলের বাকি অংশ। মধ্যপ্রাচ্যেই পরে হবে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ। আইপিএলে নিজেদের ফ্র্যাঞ্চাইজিতে যোগ দেওয়ার সুযোগ দেওয়া হয়েছে নিউ জিল্যান্ড ক্রিকেটারদের। অর্থাৎ, সানরাইজার্স হায়দরাবাদের হয়ে কেন উইলিয়ামসন, মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের হয়ে ট্রেন্ট বোল্ট, রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালুরুর হয়ে খেলার অনুমতি পাচ্ছেন কাইল জেমিসন।

বাংলাদেশ সফর শেষে ১৮ বছর পর পাকিস্তান সফরে যাবে নিউ জিল্যান্ড। স্বাগতিকদের বিপক্ষে তিন ওয়ানডে ও পাঁচ ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলবে তারা। কেবল টি-টোয়েন্টি সিরিজের জন্য পাকিস্তানে দলের সঙ্গে যোগ দিবেন মার্টিন গাপটিল, মার্ক চ্যাপম্যান, ড্যারিল মিচেল, টড অ্যাস্টল ও ইশ সোধি।

আইসিসি ক্রিকেট বিশ্বকাপ সুপার লিগের অংশ ওয়ানডে সিরিজ দিয়ে শুরু হবে দুই দলের মাঠের লড়াই। ম্যাচ তিনটি হবে ১৭, ১৯ ও ২১ সেপ্টেম্বর। সব খেলাই রাওয়ালপিন্ডিতে।

২৫ সেপ্টেম্বর শুরু টি-টোয়েন্টি সিরিজ। পরের চারটি ম্যাচ ২৬ ও ২৯ সেপ্টেম্বর এবং ১ ও ৩ অক্টোবর। সব টি-টোয়েন্টিই হবে লাহোরে।

বিশ্বকাপ দলে জায়গা হয়নি রস টেইলর, ডি গ্র্যান্ডহোমের মতো অভিজ্ঞদের। সুযোগ পেয়েছেন ২০১৪ ও ২০১৬ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে হংকংয়ের প্রতিনিধিত্ব করা বাঁহাতি ব্যাটসম্যান মার্ক চ্যাপম্যান।

কাভার হিসেবে দলের সঙ্গে থাকবেন অ্যাডাম মিল্নে।

আগামী ১৭ অক্টোবর থেকে শুরু টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ। ১৪ নভেম্বর ফাইনাল দিয়ে শেষ হবে বৈশ্বিক এই টুর্নামেন্ট। এরপর ভারতের বিপক্ষে তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলবে নিউ জিল্যান্ড। এরপর রয়েছে দুই টেস্টের সিরিজ।

বাংলাদেশ ও পাকিস্তান সফরের নিউ জিল্যান্ড দল: টম ল্যাথাম (অধিনায়ক), ফিন অ্যালেন, হামিশ বেনেট, টম ব্লান্ডেল, ডগ ব্রেসওয়েল, কলিন ডি গ্র্যান্ডহোম, জ্যাকব ডাফি, ম্যাট হেনরি (ওয়ানডে), স্কট কুগেলাইন, কোল ম্যাকাঞ্জি, হেনরি নিকোলস, এজাজ প্যাটেল, রাচিন রবীন্দ্র, বেন সিয়ার্স (টি-টোয়েন্টি), ব্লেয়ার টিকনার, উইল ইয়াং, (পাকিস্তানে শুধু টি-টোয়েন্টি খেলতে যাবেন মার্টিন গাপটিল, মার্ক চ্যাপম্যান, ড্যারিল মিচেল, টড অ্যাস্টল ও ইশ সোধি)।

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ ও ভারত সিরিজের নিউ জিল্যান্ড দল: কেন উইলিয়ামসন (অধিনায়ক), টড অ্যাস্টল, ট্রেন্ট বোল্ট, মার্ক চ্যাপম্যান, ডেভন কনওয়ে, লকি ফার্গুসন, মার্টিন গাপটিল, কাইল জেমিসন, ড্যারিল মিচেল, জেমস নিশাম, মিচেল স্যান্টনার, টিম সাইফার্ট, ইশ সোধি, টিম সাউদি, অ্যাডাম মিল্ন (কাভার)।

নিউজ ডেস্ক/নেহাল

আরও সংবাদ